সাধারণত বাৎসরিক হেলথ চেক আপ এর সময় বিভিন্ন ক্রনিক রোগ এর চিকিৎসা ব্যবস্থা নির্ধারণ করতে একজন রোগীকে তাদের আত্মীয়দের স্বাস্থ্যের অবস্থা সম্পর্কেও জিজ্ঞাসা করা হয়। স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা রোগীর বিস্তারিত পারিবারিক ইতিহাস রেকর্ড করার চেষ্টা করেন যার মধ্যে থাকতে পারে রোগীর নিকট আত্মীয়- শিশু, ভাই ও বোন, পিতা ও মাতা, চাচা ও চাচি, ভাগ্নি এবং ভাগ্নে, দাদা ও দাদী এবং চাচাতো ভাই বোন এর স্বাস্থ্য তথ্য। রোগীর পারিবারিক ইতিহাস রেকর্ড করে, স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা রোগীর স্বাস্থ্যের অবস্থার কারণ এবং প্যাটার্ন গুলো সনাক্ত করতে পারে। কিন্তু এটি কেন এতো গুরুত্বপূর্ণ?

পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্তের গুরুত্ব

পরিবার গুলো একই ধরনের জেনেটিক ইতিহাস, পরিবেশ এবং আচরণ শেয়ার করে। সম্মিলিতভাবে, এই কারণগুলো পরিবারের ব্যাধি গুলোর দিকে ডাক্তারদেরকে ইঙ্গিত করতে পারে। স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা আত্মীয়দের মধ্যে রোগের প্যাটার্ন গুলো পর্যবেক্ষণ করে কোনো ব্যক্তি, পরিবারের সদস্য বা ভবিষ্যৎ প্রজন্ম কোনো নির্দিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার উচ্চ ঝুঁকিতে আছে কিনা তা সনাক্ত করতে পারেন। 

পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্তের মাধ্যমে রোগ সনাক্তকরণ

আপনার পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্ত আপনার হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রোক, কিছু ম্যালিগনসিস এবং টাইপ ২ ডায়াবেটিসের মতো রোগের ক্ষেত্রে সাধারণ অসুস্থতার গড় ঝুঁকির চেয়ে বেশি কিনা তা সনাক্ত করতে সহায়তা করতে পারে। জেনেটিক কারণ, পরিবেশগত পরিস্থিতি এবং জীবনযাত্রার ধরনের সংমিশ্রণ এই জটিল অসুস্থতা গুলোকে প্রভাবিত করে। আপনার পিতামাতা এবং পরিবারের অন্যান্যদের স্বাস্থ্য বৃত্তান্তের ধারণা রাখা গুরুত্বপূর্ণ।

আপনার পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্ত কীভাবে একটি স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন আপনাকে করতে হবে সে সম্পর্কে তথ্য দিতে পারে। আপনি স্ক্রিনিং টেস্ট করার পরিকল্পনা করতে পারেন অথবা আপনার বংশপরম্পরায় চলা রোগ হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করতে জীবনযাত্রার পরিবর্তন করতে পারেন। আপনি যদি আপনার বংশে কারোর কোনও স্বাস্থ্য সমস্যা সম্পর্কে জানেন তবে ডাক্তারকে অবহিত করা গুরুত্বপূর্ণ। আপনার পরিবারের স্বাস্থ্য বৃত্তান্ত জানা আপনাকে আপনার স্বাস্থ্য সম্পর্কে আরও সক্রিয় হতে সহায়তা করতে পারে। ডাক্তারদেরকে আপনার পারিবারিক ইতিহাস সম্পর্কে অবহিত করার মাধ্যমে তারা সম্ভাব্য অসুস্থতা হ্রাস করার জন্য প্রতিরোধ এবং স্ক্রিনিং কৌশলের পরামর্শ দিতে পারেন।

আপনার পারিবারিক স্বাস্থ্য বৃত্তান্ত একত্র করতে, পরিবারের প্রতিটি সদস্যের যে স্বাস্থ্য সমস্যা বা রোগ রয়েছে তার একটি তালিকা তৈরি করুন। এমনকি যারা গত হয়েছেন তারদেরও। অসুস্থতার শুরুর বয়সও এই রিপোর্টে অন্তর্ভুক্ত করা উচিৎ। স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীরা আপনার রেকর্ড গুলোতে পরিবারের চিকিৎসা বৃত্তান্তে সমস্ত তথ্য গ্রহণ করা হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করবে।

আপনার সুস্থতার পরিকল্পনা

আপনি আপনার জিন পরিবর্তন করতে পারবেন না, তবে আপনি আপনার পরিবারে চলা রোগ হওয়ার ঝুঁকি কমাতে আপনার জীবন যাত্রাকে মানিয়ে নিতে পারেন। রোগের ঝুঁকি প্রতিটি ব্যক্তির জন্য পৃথক, যা বয়স, জীবনযাত্রার ধরণ এবং চিকিৎসা বৃত্তান্তের পরিবর্তনের উপর ভিত্তি করে সময়ের সাথে সাথে পরিবর্তিত হয়। আপনার চিকিৎসা বৃত্তান্তের একটি সাম্প্রতিক রেকর্ড রেখে, আপনার পরিবারের চিকিৎসা বৃত্তান্ত আপডেট করে এবং আপনার ডাক্তারের সাথে এটি শেয়ার করে নেওয়া আপনার স্বাস্থ্য ঝুঁকি প্রতিরোধ করতে সহায়তা করবে। মনে রাখবেন যে আপনার স্বাস্থ্যের মধ্যে শারীরিক এবং মানসিক উভয় সমস্যা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। পারিবারিক ইতিহাসে বিষণ্ণতার মত মানসিক সমস্যা থাকলে আপনার পারিবারিক ডাক্তারকে জানানোও গুরুত্বপূর্ণ।

আপনার ডাক্তারের কাছে আপনার পরিবারের চিকিৎসা বৃত্তান্ত সম্পর্কে যত বেশি তথ্য থাকবে, আপনি তত ভাল যত্ন পাবেন।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.